সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ০৯:১৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশ :
সিলেট বিভাগসহ দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা সদরে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। আগ্রহীরা আমাদের পত্রিকার ইমেইল ঠিকানায় পূর্নাঙ্গ জীবন বৃত্তান্ত প্রেরণের আহবান জানানো যাচ্ছে। এছাড়া প্রবাসের বিভিন্ন দেশে আমরা প্রতিনিধি নিয়োগ দিচ্ছি।
শিরোনাম :
কর পরিশোধ করা সকলের দায়িত্ব: সিসিক মেয়র দোয়ারাবাজার সীমান্তে ১১ লাখ টাকার ভারতীয় কসমেটিকস ও নাসির বিড়ি জব্দ মা-বাবার উপস্থিতিতে শপথ নিলেন সাদাত মান্নান অভি গোয়াইনঘাটে প্রায় ১৯ লাখ টাকার চোরাই চিনি জব্দ সিলেটের নতুন পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান জকিগঞ্জে ছেলে হত্যাকাণ্ডে বাবা গ্রেপ্তার কেউ ত্রাণ সহায়তা থেকে বাদ পড়বে না: সিসিক মেয়র ঈদের ছুটিতে পর্যটকশূন্য মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত সিলেটে বন্যায় ১১ হাজার ৭০৭ হেক্টর জমির ফসল প্লাবিত সিলেটে ৩৯২ বস্তা চোরাই চিনি জব্দ, আটক ১ বন্যার পানি নামলেও রয়ে গেছে ভোগান্তি সিলেট ও সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপারকে বদলি সিলেটে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় আতশবাজি উদ্ধার শর্তসাপেক্ষে খুললো সিলেটের পর্যটনকেন্দ্র এপিএ বাস্তবায়নে সারা দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে শাবিপ্রবি জুড়ীতে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে হত্যার অভিযোগ, গ্রেপ্তার ৪ পাঁচ বছরেও শেষ হয়নি নির্মাণ, ক্ষুব্ধ মুসল্লিরা সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে ফি বাড়ল তিনগুণের বেশি বিশ্বম্ভরপুরে সীমান্তে ১৫ লাখ টাকার চিনি জব্দ বাঙালির সব অর্জনেই আওয়ামী লীগ জড়িত: প্রধানমন্ত্রী সিলেট বিভাগে টানা তিনদিন বৃষ্টির শঙ্কা শান্তিগঞ্জে যুবককে কুপিয়ে হত্যা করলেন ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলে ভারত বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী, বিশ্বস্ত বন্ধু: শেখ হাসিনা দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী প্রতিনিয়ত বানভাসি মানুষের খোঁজখবর রাখছেন: শফিক চৌধুরী সিলেটে বন্যায় ৭ লাখ ৭২ হাজার শিশু ক্ষতিগ্রস্ত বাকিতে বিড়ি না দেওয়ায় ছুরিকাঘাতে যুবককে হত্যা বড়লেখায় বন্যার পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু সিলেট বিভাগের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত গোয়াইনঘাট থেকে ১৪৩ বস্তা চিনিসহ আটক ১
রাত পোহালেই ভোটযুদ্ধ
কুলাউড়ায় মুখোমুখি আ.লীগের ৩ নেতা

রাত পোহালেই ভোটযুদ্ধ
কুলাউড়ায় মুখোমুখি আ.লীগের ৩ নেতা

 

কুলাউড়া প্রতিনিধি :: আগামীকাল বুধবার অনুষ্ঠিত হবে কুলাউড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের জন্য লড়ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ তিন নেতা। তারা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রেনু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আ স ম কামরুল ইসলাম ও সহ-সভাপতি কামাল হাসান। তাদের মধ্যে রফিকুল ইসলাম রেনু আনারস, কামরুল ইসলাম কাপ-পিরিচ ও কামাল হাসান মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।
এ উপজেলায় আওয়ামী লীগের তিন প্রার্থী থাকলেও জনপ্রিয়তায় বেশ এগিয়ে রয়েছেন কামরুল। এছাড়া উপজেলা আল ইসলাহর সাধারণ সম্পাদক বর্তমান (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান সাহেদ প্রার্থী হয়েছেন দোয়াত-কলম প্রতীকে।

 

প্রতীক পেয়ে এতদিন চলেছে প্রার্থীদের ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা। গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করেছেন প্রার্থীরা। দিন-রাত তারা ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট কামনা করেছেন। আর ভোটাররাও তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভালো-মন্দসহ এলাকার নানা দাবি নিয়ে আলোচনা করছেন। এবার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামলেও কাপ-পিরিচ ও দোয়াত-কলম প্রতীকের মধ্যেই মূল লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে ভোটাররা মনে করছেন।

 

এদিকে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক প্রার্থী হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীরা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছেন। কর্মীদের টানতে প্রার্থীরা নানামুখী তৎপরতা চালান। দলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রেনুর পক্ষে ভোটের মাঠে প্রচারণায় অংশ নেন কুলাউড়া পৌর মেয়র সিপার উদ্দিন আহমদ, জেলা পরিষদ সদস্য বদরুল আলম সিদ্দিকী নানু, ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াদুদ বক্স, আকবর আলী সোহাগ, আব্দুর রব মাহাবুবসহ দলের আংশিক নেতৃবৃন্দ।

 

অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামের পক্ষে ভোটের মাঠে প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে তার বড়ভাই ও প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ আবু জাফর রাজু, আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. রুকন উদ্দিন, শফিউল আলম শফি, অরবিন্দু ঘোষ বিন্দু, মনিরুল ইসলাম চৌধুরী, মনসুর আহমদ চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোরা দে, সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুল ইসলাম বদর, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, সহদপ্তর সম্পাদক আব্দুল হাই শামীম, ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক মমদুদ হোসেন, সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলাম, মুহিবুল ইসলাম আজাদ, মোছাদ্দিক আহমদ নোমান, কুলাউড়া উপজেলার হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি ড. রজত কান্তি ভট্টাচার্য, পূজা পরিষদ কুলাউড়া উপজেলার আহ্বায়ক ডা. অরুনাভ দে, সদস্য সচিব অজয় দাস, সাবেক চেয়ারম্যান ফজলুল হক ফজলু কুলাউড়া ইউসিসিএ লি. ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল মতলিব, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মো. এনামুল হক মিফতা, যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক রহুল আমীন, এস এম জাকির হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আশফাক তানবীরসহ উপজেলা আল ইসলাহর অধিকাংশ নেতা।

 

চা-বাগান অধ্যুষিত কুলাউড়া উপজেলায় ভোটারদের কেন্দ্রে টানতে প্রার্থীরা নানা কৌশল অবলম্বন করছেন। চা-শ্রমিকদের প্রায় ৪০ হাজারের অধিক ভোট প্রার্থীর জয়-পরাজয়ে ব্যবধান গড়ে দিতে পারে।

 

গত তিন দিন সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কুলাউড়া পৌরশহর, কুলাউড়া সদর ইউনিয়নের জনতাবাজার, গাজীপুর চা-বাগান, ভূকশিমইল ইউনিয়নের নবাবগঞ্জ ও রসুলগঞ্জ বাজার, ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন, বরমচাল ইউনিয়নের ফুলেরতল বাজার, ভাটেরা ইউনিয়নের স্টেশন বাজার, পৃথিমপাশা ইউনিয়নের রবিরবাজার, টিলাগাঁও ইউনিয়ন, হাজীপুর ইউনিয়নের কটারকোনা, পাইকপাড়া, শরীফপুর ইউনিয়নের নছিরগঞ্জ বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন সড়কে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের পোস্টার ঝুলছে। কোথাও স্থাপন করা হয়েছে নির্বাচনী কার্যালয়। প্রার্থীরা তাদের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে এলাকায় এলাকায় গিয়ে উঠোন বৈঠক ও পথসভা করে উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন আর ভোট কামনা করছেন। কোনো কোনো প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা বাজারের দোকানে দোকানে প্রচারপত্র বিলি করছেন। কোথাও চায়ের দোকানে বসে স্থানীয় লোকজন প্রার্থীদের নিয়ে নানা আলোচনা করছেন।

 

ভোটারদের মতে, চেয়ারম্যান পদে ৪ প্রার্থীকে নিয়ে চলছে নানা বিশ্লেষণ। তবে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম ব্যক্তিগতভাবে খুবই জনপ্রিয়। কারণ তার পিতা সাবেক এমপি মরহুম আব্দুল জব্বার দীর্ঘদিন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। এছাড়া তার বড়ভাই মো. আবু জাফর রাজু প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ এর মাধ্যমে হাজার কোটি টাকার উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রস্তাব প্রেরণ করেছেন। বিশেষ করে ক্যানসার, লিভার, কিডনি, স্ট্রোক প্যারালাইজড, দরিদ্র, নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী, বিশেষ শিশু, মুক্তিযোদ্ধা, মুমূর্ষু প্রায় ১২০০ রোগীকে প্রায় ৬ কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। তাছাড়া গত ৫ বছরে চা শ্রমিকদের মাঝে সর্বমোট ৯ কোটি ৯৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এসব উন্নয়নে ইতোমধ্যে এলাকায় তিনি একজন জনপ্রিয় ব্যক্তি হয়ে উঠেছেন।

 

ফজলুল হক খান সাহেদ বলেন, দীর্ঘ ১০ বছর সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছি। দল-মত নির্বিশেষে ভোটাররা আমাকে নির্বাচিত করবেন বলে আমি আশাবাদী।

 

কামরুল ইসলাম বলেন, জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। উপজেলা পরিষদে পাঁচ বছর ভাইস চেয়ারম্যান ও পাঁচ বছর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছি। এবারকার নির্বাচনে সাধারণ জনগণের অনেক সাড়া পাচ্ছি। আমার পিতা একুশে পদকপ্রাপ্ত সাবেক এমপি মরহুম আব্দুল জব্বার দীর্ঘদিন মানুষের সেবা করে গেছেন। বাবার আদর্শকে বুকে লালন করে মানুষের ভালোবাসা নিয়ে এবার উপজেলা নির্বাচন করছি। নির্বাচিত হলে বিগত সময়ের মতো কুলাউড়া উপজেলার উন্নয়নে তিনি অগ্রণী ভূমিকা রাখব।

 

রফিকুল ইসলাম রেনু বলেন, তিনবার ভূকশিমইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলাম। দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছি। আমি আশা রাখছি শেষ বয়সে কুলাউড়ার মানুষ আমাকে মূল্যায়ন করবেন।

 

উল্লেখ্য, কুলাউড়া আসনে ১৩টি ইউনিয়ন ও ১ পৌরসভায় মোট ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৯০ হাজার ৬৪৮ জন। মোট ভোটকেন্দ্র ১০৩টি।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017
Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo